শনিবার, ০২ Jul ২০২২, ০২:৫১ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
বিশ্বম্ভরপুরে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে বেলটার ত্রান বিতরণ বন্যার্তদের পাশে দাঁড়ালেন কাতার প্রবাসি রুবেল মধ্যনগরে যুবলীগ সভাপতি উদ্যোগে শতাধিক পরিবারের মাঝে শাড়ী লঙ্গি বিতরণ মধ্যনগর ও ধর্মপাশায় কয়েক লাখ মানুষ দুর্ভোগে ঘর ভেঙে ফেলায় দুই নাতি নিয়ে অনশনে ভূমিহীন রিনা হাওর এলাকায় ইংরেজি ভাষা শিক্ষার চ্যালেঞ্জ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হাওর এলাকায় ইংরেজি ভাষা শিক্ষার চ্যালেঞ্জ নিয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে আগামিকাল প্রভাষক দোলনের মাতৃবিয়োগ ব্রিটিশ কাউন্সিলের আন্তর্জাতিক স্কুল এওয়ার্ড পেল ধনপুর আছমত আলী পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয় বিশ্বম্ভরপুরে কালভার্ট ভেঙে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন- বেড়েছে দুর্ভোগ
মধ্যনগর ও ধর্মপাশায় কয়েক লাখ মানুষ দুর্ভোগে

মধ্যনগর ও ধর্মপাশায় কয়েক লাখ মানুষ দুর্ভোগে

কুতুব উদ্দিন তালুকদার, বিশেষ প্রতিনিধি :

গত বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে লাগাতার অতি ভারী বৃষ্টি ও ভারতের মেঘালয়ের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে মধ্যনগর ও ধর্মপাশায় বন্যায় তলিয়ে গেছে ঘর বাড়ি । এরই মধ্যে দুই  উপজেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক,পুকুর তলিয়ে গেছে, গরু এবং কিছু কিছু ধান নিয়ে আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছে গৃহহারা লাখ লাখ মানুষ।  বন্যার পা‌নি‌তে টিবও‌য়েল পা‌নির নিচে ত‌লি‌য়ে যায় এবং বিদ্যুৎ না থাকার ফলে, দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানির সংকট, বন্যার শুরু থেকে বিদ্যুৎ না থাকায় অনেক মোবাইল ফোন বন্ধ রয়েছে বিচ্ছিন্ন হয়েছে যোগাযোগ।

বাড়িঘর ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছে কিছু সংখ্যক পরিবার, ঘরের আসবাবপত্র বানের পানিতে ভেসে গেছে অনেকেরেই। বিশুদ্ধ পানি সুব্যবস্থা না থাকায় বন্যার দুর্গন্ধ ময়লা যুক্ত পানি পান করতে হচ্ছে মানুষের। উপজেলা প্রশাসন ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,

উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়ন সুখাইড় রাজাপুর উওর, সুখাইড় রাজপুর দক্ষিন, মধ্যনগর সদর , চামরদানি ও বংশীকুন্ডা দক্ষিণ, বংশিকুন্ডা উওর, সেলবরষ, পাইকুরাটি, ধর্মপাশা সদর ইউনিয়নের প্রায় একাধিক লক্ষ পরিবার বর্তমানে পানি বন্দি অবস্থায় রয়েছে। বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে উপজেলার ১০ হেক্টর সবজি বাগান। এছাড়া বন্যার পানিতে রাস্তাঘাট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, পুকুর  ও ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে বন্যার পানি ঢুকে নষ্ট হচ্ছে লাখ লাখ টাকার মালামাল ।

অধিকাংশ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান অঘোষিত ভাবে বন্ধ হয়েছে। পানিবন্দি মানুষের জন্য ৭০ টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলার খবর পাওয়া গেছে। এসব আশ্রয়কেন্দ্রে ১০ হাজার বন্যাকবলিত পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। প্রতিটি আশ্রয়কেন্দ্রে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শুকনো খাবার বিতরণ করার খবর পাওয়া গেছে। এর মাঝে মধ্যনগরের গলহা আশ্রয় কেন্দ্রের মানুষের খাবার বিতরণ দূরের কথা  খবর পর্যন্ত কেউ খবরও নেয়নি। মোবাইল ফোনে কথা বলে জানা যায়,

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মানবেন্দ্র দাস বলেন, ধর্মপাশা ও মধ্যনগর উপজেলায় ১৯৪টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। এর মধ্যে ৮৫টি বিদ্যালয়ের ভেতরে বন্যার পানি ঢুকে পড়েছে। ৫৩টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মানুষ গবাদিপশু নিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। অবশিষ্ট বিদ্যালয়গুলোয় বন্যার্ত ব্যক্তিদের আশ্রয়ের জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা  নাজমুল ইসলাম বলেন, ধর্মপাশা  উপজেলায় ১১০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন জাতের সবজি আবাদ করা হয়েছিল। এখন মৌসুম শেষের দিকে। বন্যার পানিতে ১০ হেক্টর সবজি খেত পানিতে তলিয়ে গেছে।

উপজেলা জ্যেষ্ঠ মৎস্য কর্মকর্তা মো.  সালমুন হাসান বলেন, উপজেলায় ৭৩৭টি পুকুর রয়েছে। সব কটি পুকুর বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে। ক্ষতির পরিমাণ নিরুপণের চেষ্টা চলছে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রজেশ চন্দ্র দাস জানান, তবে  বন্যা পরিস্থিতি সামাল দিতে প্রয়োজনে শুকনো খাবার, আবাসনসহ যে কোনো সংকট মোকাবিলায় উপজেলা প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে।

ধর্মপাশা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুনতাসির হাসান বলেন, বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য ৭০টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। ইতোমধ্যে এসব আশ্রয়কেন্দ্র  ১০ হাজার  পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। বন্যার্তদের জন্য ত্রাণসামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম চলছে।

শেয়ার করুন




 

 

 

 

© 2017-2021 All Rights Reserved Amadersunamganj.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!