শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৫:১০ পূর্বাহ্ন

বিশ্বম্ভরপুরে সরিষার ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি

বিশ্বম্ভরপুরে সরিষার ফলন ভালো হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি

জাকির হোসেন রাজু:: সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় চলতি মৌসুমে সরিষার ভালো ফলন হয়েছে। উপজেলার কয়েকটি স্থানে সরিষা উত্তোলনের প্রস্তুতি চলছে।

কৃষকেরা জানান, সরিষা চাষে তেমন খরচ নেই। জমি চাষের পর বীজ ছিটিয়ে দিতে হয়। তারপর গাছ বড় হলে সেচ দিতে হয়। সার বা কীটনাশক তেমন একটা দিতে হয় না। এ কারণে সরিষা চাষে অনেক লাভবান হওয়া যায়।

রাজাপাড়া গ্রামের কৃষক অমৃত কুমার হাজং বলেন, ‘চলতি মৌসুমে দেড় বিঘা জমিতে সরিষার আবাদ করেছি। উপজেলা কৃষি কার্যালয় থেকে বীজ ও সার পেয়েছি। দেড় বিঘা জমিতে সরিষার আবাদে এ পর্যন্ত ৩ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। বিঘাপ্রতি ৫ মণ ফলন পাওয়ার আশা করছি। আশা করি দেড় বিঘা জমিতে সরিষা চাষ করে প্রায় ২৫ হাজার টাকা লাভ করতে পারব।’

চরগাঁও গ্রামের কৃষক মো. আব্দুল ছাত্তার ৯ বিঘা জমিতে বারি সরিষা-১৪ আবাদ করেছেন। তিনি বলেন, ‘এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় সরিষার ফলন ভালো হয়েছে। কৃষি কর্মকর্তারা এসে খোঁজ নিচ্ছেন।’

শক্তিয়ারখলা গ্রামের সরিষা চাষি শামসুল ইসলাম জানান, এ বছর ৮ বিঘা জমিতে সরিষার আবাদ করেছেন। জমি চাষ, বীজ, সার ও কীটনাশক প্রয়োগ বাবদ এ পর্যন্ত বিঘাপ্রতি প্রায় ৪ হাজার টাকা খরচ হয়েছে তাঁর। ৮ বিঘা জমিতে তাঁর ৩০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

শামসুল ইসলাম আক্ষেপ নিয়ে বলেন, ‘উপজেলা কৃষি কার্যালয় থেকে কোনো সহযোগিতা পাইনি।’

উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ সামছুল আলম (বিধু) বলেন, ‘গত কয়েক বছরের তুলনায় এ বছর সরিষার চাষ বেড়েছে ৩ গুণ। উচ্চফলন আর লাভের আশায় কৃষকদের মনে এখন আনন্দের জোয়ার।’

বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ মো. নয়ন মিয়া বলেন, ‘চলতি মৌসুমে বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় ২৩০ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় চলতি মৌসুমে বিশ্বম্ভরপুরের কৃষকেরা সরিষা চাষে লাভবান হবেন।’

 

শেয়ার করুন




 

 

 

 

© 2017-2021 All Rights Reserved Amadersunamganj.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!