শনিবার, ০৪ এপ্রিল ২০২০, ০২:৫৬ অপরাহ্ন

জেলায় প্রবাস ফেরত ৪ হাজার, কোয়ারেন্টাইনে ২৯৭ জন

জেলায় প্রবাস ফেরত ৪ হাজার, কোয়ারেন্টাইনে ২৯৭ জন

স্টাফ রিপোর্টার:: জেলায় করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সম্প্রতি প্রবাস ফেরতরা হোম কোয়ারেন্টাইন অনুসরণ করছেন না। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ/নিয়ন্ত্রণ/প্রতিরোধের জন্য বিদেশ থেকে আগত প্রবাসীদের ১৪দিন বাধ্যতামূলক হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা নিশ্চিত করার নির্দেশনা থাকলেও তা কেউ মানছেন না। জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সুত্রে জানা যায়, গত ১ মার্চ হতে জেলায় প্রায় ৪ হাজার প্রবাসী বিভিন্ন দেশ থেকে ফিরেছেন। স্বাস্থ বিধি যথাযথভাবে অনুসরনের জন্য অব্যাহতভাবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ধর্মীয় উপাসনালয়, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়াসহ স্থানীয় প্রশাসন কর্তৃক মাইকিং ও লিফলেট বিতরন করার মাধ্যমে অনুরোধ করা সত্বেও অনেক প্রবাসী তা মানছেন না। অথচ অবাধে স্থানীয় হাটবাজার, বাসস্ট্যান্ড, হোটেল-রেস্তোরা, ইত্যাদিতে ঘোরাফেরা করছেন। ইতোমধ্যে হোম কোয়ারেন্টাই না মানায় কয়েকজন প্রবাসীকে জরিামানাও করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। হোম কোয়ারেন্টাইন সংক্রান্ত সরকারি নির্দেশনা অমান্যকারীর বিরুদ্ধে সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নিমূল) আইন ২০১৮ এবং দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৬৯, ২৭০ ও ২৭১ ধারা অনুযায়ী আইনানুগ ব্যব¯’া গ্রহণ করা হলেও প্রবাস ফেরত সুনামগঞ্জে ৪ হাজার প্রবাসীদের মধ্যে হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ২৯৭ জন। এদিকে জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলি ইউনিয়নের সাতহাল গ্রামের এক যুক্তরাজ্য প্রবাসী নারী সিলেট আইসোলেশন সেন্টারে ১০ দিন ধরে জ্বর, সর্দি, কাশির সঙ্গে শ্বাসকষ্টে ভোগার পর গত রোববার মৃত্যু বরণ করেন। এ ঘটনায় ওই নারীর ৮ জন আত্মীয়-স্বজনকে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারেন্টাইনে প্রেরণ করেন উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ইয়াসির আরাফাত। তাদেরকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। শর্ত ভঙ্গ করলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। করোনা ভাইরাস সংক্রমন নিয়ন্ত্রনের জন্য জনস্বার্থে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৭ টার পর ঔষধের দোকান ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকান ছাড়া জেলা সদর/উপজেলা সদর ও পৌরসভার সকল প্রকার মার্কেট দোকানপাট বন্ধ এবং পরবর্তী নির্দেশনা না দেয়া পর্যন্ত গবাদি পশুর হাট/বাজার/গরু/ছাগল/মহিষ/ভেড়া ইত্যাদি বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে। রোববার সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ স্বাক্ষরিত পৃথক বিজ্ঞপ্তিতে আদেশ প্রদান করা হয়। আইনঅমান্যকারীদের বিরোদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে আদেশে উল্লেখ করা হয়। এ বিষয়ে জেলা সিভিল সার্জন ড. সামছু উদ্দিন ২৯৭ জন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন নিশ্চিত করে বলেন, জেলা সদরে একটি প্রতিষ্টানিক কোয়ারেন্টাইনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে। প্রয়োজনে আরো করা হবে। জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজেস্ট্রিট মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ বন্ধের নির্দেশনা কথা নিশ্চিত করে বলেন, জনস্বার্থে এ আদেশ প্রদান করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, প্রবাসীদের কেউ যদি অবাধে চলাফেরা করেন তবে (ছবি বা ভিডিও) প্রমাণসহ স্থানীয় প্রশাসন ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিসট্রেট/পুলিশ/স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের নিকট তথ্য প্রদান, একই সাথে জনসাধারণকে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘোরাফেরা না করার জন্য অনুরোধ জানান তিনি।

শেয়ার করুন




 

 

 

 

© 2017-2019 All Rights Reserved Amadersunamganj.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!