মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৮:২৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ :
সোনাপুর মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ে এম.পি মানিককে সংবর্ধনা শিক্ষক নিবন্ধনের জাল সনদে ১০ বছর ধরে চাকরি! প্রকাশিত হয়েছে তরুণ লেখিকা হাসিনা হাসি’র উপন্যাস ‘গহীনে শব্দ’ যাদুকাটা নদী থেকে বালু পাথর উত্তোলন বন্ধ: বছরজুড়ে বেকার লক্ষাধিক শ্রমিক আসছে তরুণ লেখক জাকির হোসেন রাজু’র বই ‘না ছুঁয়ে তোমাকে ছোঁব’ কবিতা : কলম সৈনিক : আমিনুল ইসলাম সিলেট বিভাগীয় বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন এড. আবুল হোসেন বিশ্বম্ভরপুরে শ্রমিক লীগের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ শাখা যাদুকাটা নদীর ভাঙ্গন: বিলিনের পথে বাগগাঁও-ডালারপাড় গ্রাম বাদাঘাট (দঃ) ইউপি নির্বাচন: আ’লীগের মনোনয়ন চান জামাল হোসেন
পর্যটনের অপার সম্ভাবনা: তাহিরপুরের বারিকটিলা ও যাদুকাটা

পর্যটনের অপার সম্ভাবনা: তাহিরপুরের বারিকটিলা ও যাদুকাটা

বিশেষ প্রতিবেদক:: দেশের উওরপূর্বাঞ্চলের জেলা সুনামগঞ্জের তাহিরপুরের সীমান্তবর্তী ভারতের মেঘালয় রাজ্যের খাসিয়া পাহাড় ঘেষে অবস্থিত বারিক টিলা ও পাশ দিয়ে প্রবাহিত পাহাড়ি নদী যাদুকাটা নৈসর্গিক সৌন্দয্যের লীলাভূমি দর্শনীয় ও আকর্ষণীয় এক স্থান। জেলার উওর পশ্চিমে এবং তাহিরপুর উপজেলা থেকে উত্তরে ভারত সীমান্তে অবস্থিত এ বারিক টিলা ও যাদুকাটা নদী। বর্ষায় পাহাড়ি নদী যাদুকাটার বুকে ¯্রােতধারা আর হেমন্তে শুকিয়ে যাওয়া যাদুকাটার বুক জুড়ে ধু-ধু বালুচর এবং পার্শ্বস্থ ভারতের সারি-সারি উচু নীচু মেঘালয় রাজ্যের খাসিয়া পাহাড় ও বাংলাদেশের বারিক টিলার সবুজ বনায়ন মাটিয়া পাহাড় এখানে আসা লোকজনের দৃষ্টি কেড়ে নেয়।

এ দুই নান্দনিক নৈসর্গিকতার পাশাপাশি তাহিরপুরের দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে রয়েছে যাদুকাটা ও বারিক টিলার পূর্ব প্রান্তে ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম সফর সঙ্গী শাহ আরফিন (র:) আস্তানা, যাদুকাটা নদীতীরে লাউর নবগ্রাম শ্রী-শ্রী অদ্বৈত প্রভুর মন্দির ও পনতীর্থ ধাম, পশ্চিমতীরে ইস্কন মন্দির, বোত্তাশাহর মাজার, বড়ছড়া কয়লা ও চুনাপাথর শুল্কষ্টেশন, টেকেরঘাট চুনাপাথর খনিজ প্রকল্প,আওলি জমিদার বাড়ি, রামসা প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত বিশাল টাংগুয়া হাওরের জলাভূমি এবং বনভূমি উল্লেখযোগ্য।

বারিকটিলার উপর দাঁড়ালে একদিকে চোখে পড়ে হাওর ও অন্যদিকে সারি-সারি পাহাড়। এ মনোরম দৃশ্য যে কারোই মন কেড়ে নেয় সহজেই। জেলা শহর সুনামগঞ্জ থেকে ২০ কিলোমিটার এবং তাহিরপুর উপজেলা সদর থেকে ১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এ বারিক টিলা ও যাদুকাটা নদী। যাদুকাটা ও বারিক টিলার নয়নাভিরাম দৃশ্যকে নিয়ে রয়েছে পর্যটন শিল্পের এক উজ্জ্বল সম্ভাবনা। বাস্তবে না দেখলে তা কেউ উপলব্ধি করতে পারবেনা। যাদুকাটা যেমনি প্রাকৃতিক সৌন্দর্য দিয়ে শোভামন্ডিত করেছে এলাকার নান্দনিকতা তেমনি যাদুকাটার বালি ও পাথর উত্তোলন করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে লক্ষাধিক শ্রমিক। আর এ যাদুকাটার বালি ও পাথর দেশের আভ্যন্তরীন রাস্তাঘাট ও ইমারত নির্মাণে বিরাট অবদান রেখে আসছে। বর্ষায় ¯্রােতস্বীনি যাদুকাটায় ঢল নামার সঙ্গে নদী দিয়ে ভেসে আসা গাছ-পালা জ্বালানী কাঠ হিসেবে সংগ্রহের জন্য মহানন্দে নদীতে নেমে পড়ে নদীতীরবর্তী এলাকার হাজার হাজার লোকজন।

শেয়ার করুন




 

 

 

 

© 2017-2020 All Rights Reserved Amadersunamganj.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com
error: Content is protected !!